21 Sep 2017 : সিলেট, বাংলাদেশ :     |Bangla Font Error | Login |

পাতাঃ সম্পাদকীয়

রমজানে অতিরিক্ত আহারের অভ্যাস ত্যাগ করুন

রমজানের রোজা অতিরিক্ত খাদ্য গ্রহণের অভ্যাস ত্যাগ ও আহারে সংযম অনুশীলনের একটি মহাসুযোগ। কারণ বিশ্বে না খেয়ে যতো মানুষ মারা যায়, তার চেয়ে বেশী মারা যায় অতিরিক্ত খাদ্য গ্রহণের কারণে। অথচ এই রমজান মাসে অনেককে দিনে না খেলেও সন্ধ্যায় ইফতারীসহ রাতের বেলা গোগ্রাসে খাবার খেতে দেখা যায়। এটা রমজানের চেতনার পরিপন্থী। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় জানা গেছে, দীর্ঘজীবী হতে হলে কম খেতে হবে। বিপাকের অধিক হার অকালমৃত্যুর ঝুঁকি সৃষ্টি করে। দেখা গেছে, জাপান ও যুক্তরাষ্ট্রের যেসব কমিউনিটির লোক স্বল্প ক্যালোরির খাবার গ্রহণের কঠোর নিয়ম মেনে চলে তারা বিশ্বের গড় আয়ু’র চেয়ে বেশী দিন বাঁচে। গবেষকদের মতে, দৈনিক ৬০০ ক্যালোরির বেশী গ্রহণ না করলে যে কেউ সুস্থ দেহে দীর্ঘ জীবন যাপন করতে পারবেন। গবেষকদের উপরোক্ত গবেষণালব্ধ তথ্যটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। অতিরিক্ত খাবার বা অতিরিক্ত ক্যালোরীযুক্ত খাদ্য গ্রহণ শুধু হৃদরোগ নয়, ক্যান্সার, ডায়াবেটিসসহ আরো অনেক মারাত্মক রোগের জন্য দায়ী। বিস্তারিত…

(66 বার পড়া হয়েছে)

বজ্রপাত অব্যাহত

গত বর্ষা মৌসুমে এমনকি বর্ষা শেষ হওয়ার পরেও বজ্রপাতে সিলেট অঞ্চলসহ গোটা দেশে কয়েকশ লোক নিহত হন। এবারও ব্যাপকভাবে ঘটছে বজ্রপাতের ঘটনা। শুধু মাত্র গতকাল দেশের ৭ জেলায় ২ ভাইসহ ১৪ জনের মর্মান্তিক প্রাণহানি হয়েছে। নিঃসন্দেহে এটা একটি আতংক সৃষ্টিকারী সংবাদ। দেখে গেছে, ভূমিকম্পে মানুষ মারা যেতে কিছুটা সময় লাগে কিন্তু বজ্রপাতে মৃত্যু হতে মাত্র কয়েক সেকেন্ড লাগে। বলা যায়, মাত্র একটি আলোর ঝলকানি ও প্রচন্ড শব্দ। এরপর সব কিছু শেষ। এমনকি দেখা গেছে, অনেক ক্ষেত্রে মজবুত পাকা ঘরে অবস্থান করেও বজ্রপাতের হাত থেকে রেহাই পাননি অনেকে। তা সত্বেও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলে ভূমিকম্পের মতো আকস্মিক ও ভয়ানক এই প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে কিংবা এর ক্ষয়ক্ষতি থেকে বহুলাংশে রেহাই পাওয়া সম্ভব। বিস্তারিত…

(105 বার পড়া হয়েছে)

ত্রুটিপূর্ণ গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যাপারে সতর্ক হোন

গৃহস্থালীতে নতুন গ্যাস সংযোগ প্রদান বন্ধ করে দেয়ার ফলে গোটা দেশে এখন সিলিন্ডার গ্যাসের ব্যবসা জমজমাট হয়ে ওঠেছে। এর সাথে বৃদ্ধি পাচ্ছে সিলিন্ডার বিস্ফোরনের ঘটনা। গত কয়েক মাসে সিলেট অঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের অনেকগুলো ঘটনা ঘটেছে। এর পাশাপাশি ঘটেছে বিভিন্ন যানবাহনের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনাও। গত শনিবার সুনামগঞ্জ জেলার সরদারপুর গ্রামে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের ৪ ভাইসহ ৫ জন আহত হন। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশংকাজনক। বিস্তারিত…

(235 বার পড়া হয়েছে)

বৃষ্টিপ্রধান সিলেটে প্রয়োজন আরসিসি ঢালাই রাস্তা

সম্প্রতি বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় সিলেট অঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের রাস্তাঘাটের শোচনীয় অবস্থার সচিত্র সংবাদ ও প্রতিবেদন প্রকাশিত হতে দেখা যাচ্ছে। প্রায় প্রতিদিনই এ ধরণের সংবাদ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। গত ক’দিনের প্রচন্ড বর্ষণে সিলেট নগরীর বিভিন্ন রাস্তা ও গলিপথে বড়ো বড়ো গর্ত ও খাদ সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষভাবে নগরীর বিভিন্ন পাড়া মহল্লার যেসব রাস্তায় গোড়াতে টেকসই নির্মাণ ও মেরামতের কাজ হয়নি সেগুলোতে মাটি দেবে পীচ ভেঙ্গে গর্ত ও গভীর খাদ সৃষ্টি হয়েছে। এ অবস্থায় রাস্তা ও গলিপথগুলো পথচারী ও যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে রীতিমতো ঝুঁকিপূর্ণ ও বিপজ্জনক হয়ে ওঠেছে। বিস্তারিত…

(194 বার পড়া হয়েছে)

ডাকাতি, না অশনি সংকেত?

গতকাল দৈনিক জালালাবাদে ‘খাদিমনগরে আওয়ামী লীগ নেতার বাড়ীতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি, ৪ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট’ শীর্ষক এক সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, শহরতলীর এয়ারপোর্ট থানার খাদিমনগর ইউনিয়নের ছালেপুর গ্রামে এক আওয়ামী লীগ নেতার বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। ডাকাত দল ৪ ভরি স্বর্ণ ও নগদ টাকাসহ প্রায় ৪ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এতে আরো বলা হয়েছে, ডাকাতরা পরিবারের সদস্যদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি বিস্তারিত… (184 বার পড়া হয়েছে)

প্রসঙ্গ : শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে খেলার মাঠ নেই

ইতোপূর্বে একটি জাতীয় দৈনিকে ‘মাঠ নেই, রাজধানীর ৯৫ স্কুলে’ শীর্ষক একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। এতে বলা হয়েছে, রাজধানীর ৯৫ ভাগ স্কুলে মাঠ নেই। শুধু মাঠ নয়, অনেক স্কুলে ঠিক মতো আলো-বাতাস প্রবেশেরও সুযোগ নেই। এতে আরো বলা হয়েছে, শুধু কিন্ডারগার্টেন নয়, রাজধানীর অনেক নামীদামী স্কুলেও খেলার মাঠ নেই। পুরোনো স্কুলগুলোতে বড়ো বড়ো মাঠের উপর তৈরী হচ্ছে বহুতল বাণিজ্যিক ভবন। একটি শিশুকে মেধাহীন করে গড়ে। বলা বাহুল্য, রাজধানীসহ বিভিন্ন নগরী ও শহরের শিশুরা নানা নাগরিক সুবিধা পেলেও খেলার সুযোগ পাচ্ছে না। বিদ্যালয়েও শিক্ষার্থীদের স্বাধীনভাবে মুক্ত আলো বাতাসে খেলার বা শরীর চালনা করার কোন সুযোগ বা ব্যবস্থা নেই, বাড়ির সামনে তো নয়ই। বিস্তারিত…

(99 বার পড়া হয়েছে)

পরিস্থিতি গুরুতর সরকারের দ্রুত পদক্ষেপ প্রয়োজন

সিলেট বিভাগের হাওরাঞ্চলে ফসলহানির পর মাছ মরার কারণ সম্পর্কে এক মারাত্মক আশংকার কথা প্রকাশিত হয়েছে বিভিন্ন জাতীয় ও স্থানীয় পত্র পত্রিকায়। এতে বলা হয়েছে, মেঘালয় সীমান্তের কাছে উন্মুক্ত ইউরেনিয়াম খনির তেজোস্ক্রিয়তা ছড়িয়ে পড়ায় সিলেট অঞ্চলের বিভিন্ন হাওরের মাছ ও অন্যান্য জলজপ্রাণী ব্যাপক হারে মারা যাচ্ছে। সেই মাছ ও জলজ প্রাণী খেয়ে মারা যাচ্ছে হাওরাঞ্চলে চরে বেড়ানো গৃহপালিত হাজার হাজার হাঁস। এ অবস্থায় সেসব অঞ্চলে মাইকিং করে জানিয়ে দেয়া হয়েছে, এসব মরা মাছ যেনো কেউ না খায়’। বিস্তারিত…

(74 বার পড়া হয়েছে)

সুনামগঞ্জে উন্নয়নের শুভ সূচনা

সিলেট অঞ্চলের প্রাকৃতিক সম্পদ ও সৌন্দর্যে ভরপুর একটি জেলা হচ্ছে সুনামগঞ্জ। কিন্তু রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে দীর্ঘকালীন কলহ-কোন্দল, দ্বন্দ্ব ও টানাপোড়েনের কারণে এই জেলাটির কাংখিত উন্নয়ন হয়নি। বিশেষভাবে অবকাঠামোগত ও যোগাযোগের ক্ষেত্রে এই জেলাটি সিলেট অঞ্চলের অন্যান্য জেলার মধ্যে অনেক পিছিয়ে। কিন্তু সাম্প্রতিককালে এই জেলার বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়নের নানা পদক্ষেপ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রে এই উন্নয়ন সবার নজরে পড়ছে। আর এই উন্নয়নের প্রধান কান্ডারী হচ্ছেন বর্তমান অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি। তার আন্তরিক প্রচেষ্টায় দীর্ঘদিনের অবহেলিত এই জেলায় এখন নানা উন্নয়নধর্মী পদক্ষেপ গৃহীত হয়েছে। এর অনেকগুলো ইতোমধ্যে বাস্তবায়িত হয়েছে এবং অনেকগুলো বাস্তবায়নের কাজ চলছে। বিস্তারিত…

(425 বার পড়া হয়েছে)

অবিলম্বে জামালগঞ্জের ফসল রক্ষা বাঁধগুলো নির্মাণ করুন

গতকাল দৈনিক জালালাবাদে ‘জামালগঞ্জে হাওরের সাড়ে ৩ কোটি টাকার বাঁধ নির্মাণ কাজ শেষ হয়নি, কৃষকরা দিশেহারা’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ উপজেলার ১৩ টি হাওরে চলতি বোরো ফসল রক্ষা বেড়ি বাঁধের অধিকাংশের নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়ায় লক্ষাধিক কৃষক পরিবার ক্ষুব্ধ। পানি উন্নয়ন বোর্ডের চরম গাফিলতির দরুন অসময়ে ত্রুটিপূর্ণ বাঁধ নির্মাণের ফলে ইতোপূর্বে উপর্যুপরি পানিতে ডুবে ফসলহানি ঘটে। চলতি মওসুমেও বোরো ফসল রক্ষার ব্যাপারে কৃষকদের মাঝে শংকা ও হতাশা বিদ্যমান। বিস্তারিত…

(140 বার পড়া হয়েছে)

সারা দেশে চলছে মাদকের রমরমা বাণিজ্য

গতকাল একটি জাতীয় দৈনিকে ‘মাদকের রমরমা বাণিজ্য’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, রাজধানীসহ সারা দেশে চলছে মাদকের রমরমা বাণিজ্য। নগর-মহানগর থেকে জেলা-উপজেলা শহর সর্বত্র মাদকের ছড়াছড়ি। কোন ধরণের রাখঢাক নেই, প্রকাশ্যেই মুড়ি-মুড়কির মতো খোলাবাজারে কেনা-বেচা হচ্ছে। মাদকের সহজলভ্যতার কারণে এখন কিশোর ও তরুণ-তরুণীরা আশঙ্কাজনক হারে মাদক সেবনে জড়িয়ে পড়ছে। এদের দমন করতে পারছে না আইন শৃংখলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সংস্থার কর্মকর্তারা। মাদকসেবী সন্তানের হাতে খুন হচ্ছেন পিতা-মাতা, স্বামীর হাতে খুন হচ্ছেন স্ত্রী, পিতার হাতে সন্তান, বন্ধুর হাতে বন্ধু, ভাইয়ের হাতে ভাই ও বোন খুন হচ্ছেন। মাদকবিরোধী অভিযান চালাতে গিয়ে সরকারী কর্মকর্তারাও মাদক বিরোধী সিন্ডিকেটের হামলার শিকার হচ্ছেন।’ বিস্তারিত…

(153 বার পড়া হয়েছে)