20 Nov 2017 : সিলেট, বাংলাদেশ :     |Bangla Font Error | Login |

পাতাঃ আইন-আদালত

শাহজালালের (রহ.) মাজারে ‘জমজম কুপের’ পানির নামে প্রতারণা, তদন্তের নির্দেশ

mazar-14957

স্টাফ রিপোর্টার : হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজারে ডিপ টিউবওয়েলের পানিকে ‘জমজম’ কুপের পানি বলে বিক্রির মাধ্যমে প্রতারণার অভিযোগে দুই জনের নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাত ৫/৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সিলেটের চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুজ্জামান হিরোর আদালতে গতকাল রোববার এ মামলা দায়ের করেন কদমতলীর দারিয়া শাহ মাজার রোডের এম. এ কুদ্দুস ভিলার বাসিন্দা এইচ.এম. আব্দুর রহমান। আদালত দরখাস্ত গ্রহণ করে শুনানী শেষে আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন জমা দিতে ইসলামীক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালককে নির্দেশ দিয়েছেন।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার সংলগ্ন মসজিদে গত ১০ অক্টোবর বিকেল অনুমান সাড়ে ৩ টায় আসরের নামাজ আদায়ের উদ্দেশ্যে যান এইচ এম আব্দুর রহমান। নামাজ শেষে মসজিদের পশ্চিম পার্শ্বে ঝর্ণার পাড় দিয়ে দেখতে পান কিছু লোক জমজমের পানি বিক্রি করছে। সরল বিশ্বাসে ৫০ টাকা দিয়ে দুই বোতল পানি কিনতে যান। পরবর্তীতে ৩১ অক্টোবর একাত্তর টিভিতে এ বিষয়ে প্রচারিত হয় একটি প্রতিবেদন।

এর পর বিষয়টি আদালতের নজরে আনেন এইচ এম আব্দুর রহমান। এ ব্যাপারে এইচ এম আব্দুর রহমান জানান ‘গত ১০ অক্টোবর বিকেলে আমি দরগাহ যাই। তারপর দরগাহে জমজম কুপের পানি বিক্রি হচ্ছে দেখি। হযরত শাহজালাল (রহ.) এর মাজারের ডিপ টিউবওয়েল থেকে পানি বোতলে করে নিয়ে জমজম কুপের পানি বলে সরল বিশ্বাসের মানুষের কাছে বিক্রি মাধ্যমে প্রতারণা করা হয়। এ ঘটনায় এইচ এম আব্দুর রহমান গত ১৮ নভেম্বর পুনরায় ঝর্ণার পার গিয়ে প্রতারণা সাথে জড়িত ব্যক্তিদের নাম সংগ্রহ করেন।

রোববার জনস্বার্থে তিনি সিলেটের চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুজ্জামান হিরোর আদালতে হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার ঝর্ণার পারের বাসিন্দা শাহীন মিয়া ও আব্দুস ছাত্তারের নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাত ৫/৭ জনের বিরুদ্ধে দরখাস্ত মামলা দায়ের করেন। যার নং ১৫৬২/১৭ ধারা ৪০৬/৪২০ দন্ডবিধি। আদালত দরখাস্ত গ্রহণ করে ২০২ ধারা মোতাবেক অভিযোগটি তদন্ত করে আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশন সিলেটের উপ-পরিচালককে নির্দেশ দেন।

(24 বার পড়া হয়েছে)

ছাতকে ভীমরুলের কামড়ে ৩ জন নিহত, আহত ৩

vimrulছাতক সংবাদদাতাঃ ছাতকে ভীমরুল পোকার আক্রমনে ৩জন নিহত ও আহত হয়েছেন আরো ৩জন। একসপ্তাহের মধ্যে এসব হতাহতের ঘটনায় জনমনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। জানা যায়, বুধবার উপজেলার ছৈলা-আফজালাবাদ ইউপির কহল্লা গ্রামের আবুল কালামের পুত্র হাসান আহমদ (৮) লাকড়ি সংগ্রহের সময় ভীমরুল পোকার আক্রমনে গুরুতর আহত হয়। বিস্তারিত… (316 বার পড়া হয়েছে)

বাহুবলে গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে রহস্য রহিমার স্বজনেরা বলছেন পরিকল্পিত হত্যা

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার পার্শ্ববর্তী বাহুবল উপজেলার লাকড়িপাড়া গ্রামে স্বামীর বাড়িতে রহিমা আক্তার লাভলী (১৯) নামের গৃহবধুর মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। রহিমার স্বজনেরা বলছেন শ্বশুর বাড়ির লোকজন তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। অপরদিকে তার স্বামীর বাড়ির লোকজনদের দাবি গৃহবধু লাভলী স্ট্রোক করে মারা গেছে। তিন দিন পর লাশ ময়না তদন্ত শেষে দাফন করা হয়েছে।সুত্রে প্রকাশ,বড়গাঁও গ্রামের আব্দুল হামিদ চৌধুরীর কন্যা মোছাঃ রহিমা আক্তার লাভলী চৌধুরীকে প্রায় আট মাস পুর্বে বিয়ে বিস্তারিত… (98 বার পড়া হয়েছে)

ছাতকে মিনিবাস পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ১০

Durgotonaছাতক প্রতিনিধিঃ ছাতকে মিনিবাস ও পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে দু’নির্মাণ শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এঘটনায় মহিলাসহ ১০জন শ্রমিক আহত হয়। বুধবার রাত ৯টায় সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের জাতুয়াবাজার এলাকায় এঘটনা ঘটে। বিস্তারিত… (128 বার পড়া হয়েছে)

সিলেটে ভৌতিক বিলে বিক্ষুদ্ধ গ্রাহকদের বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাও

biddutমো. শাফী চৌধুরী
সিলেট জুড়ে প্রদান করা হচ্ছে ভৌতিক বিদ্যুৎ বিল। এ নিয়ে বিদ্যুৎ অফিসে গ্রাহকরা বার বার অভিযোগ করেও পাচ্ছেন না সমাধান। সর্বশেষ কোন সমাধান না পেয়ে ভৌতিক বিদ্যুৎ বিল প্রদানের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ-২ এর মিরাবাজার অফিস ঘেরাও করেছে গ্রাহকরা। এ সময় অফিসের কর্মকর্তাদের সাথে গ্রাহকদের বাকবিতন্ডা করতে দেখা যায়। পরবর্তীতে নির্বাহী প্রকৌশলীর আশ্বাসে তারা ঘেরাও তুলে নেন।
জানা যায়, বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ সিলেটের এর আওতাধীন বিভিন্ন এলাকায় গত কয়েক মাস যাবত ভৌতিক বিদ্যুৎ বিল প্রদান করে আসছেন কর্তৃপক্ষ। অনেকের বিদ্যুৎ বিলে একমাসের ব্যবধানে কয়েক হাজার টাকা বিল প্রদানেরও অভিযোগ পাওয়া গেছে। মৌখিক ভাবে গ্রাহকরা কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে অভিযোগ করে আসলেও তারা তাতে কোন কর্ণপাত করেন নি। অভিযোগ কারীদের সাথে আলাপ করে জানা যায়, বিগত কয়েক মাস থেকে মিটারের রিডিংয়ের সাথে কোন মিল না রেখে বিদ্যুৎ বিল প্রদান করে আসছে বিদ্যুৎ বিভাগ। তারা তার প্রতিবাদ করলে কর্তৃপক্ষ থেকে তাদেরকে এনালগ মিটার পরিবর্তন করে ডিজিটাল মিটার স্থাপনের পরামর্শ দেন। ডিজিটাল মিটার স্থাপন করলে মিটারের রিডিংয়ের সাথে বিলের মিল থাকবে বলে আশ্বস্ত করা হয় তাদের। কিন্তু ডিজিটাল মিটার স্থাপনের পরও সেই আগের মত ভৌতিক বিল প্রদান করা হচ্ছে। তাছাড়াও লাইনম্যান মিটার না দেখে বিদ্যুৎ বিল লিখে থাকেন বলে জানান অভিযোগকারীরা। যার ফলে মাসের পর মাস থেকে এ বাড়তি বিল প্রদান করতে হচ্ছে গ্রাহকদের।
রায়নগর এলাকার শাহজাহান আহমদ জুন মাসের তার বাসার একটি বিদ্যুৎ বিলের কাগজ দেখিয়ে বলেন, জুন মাসে আমার বাসায় ১৭০ ইউনিট বিদ্যুতের বিল প্রদান করা হয়। কিন্তু জুলাই মাসে আমাকে ৯৮৭ ইউনিটের বিল প্রদান করা হয়েছে। এ বিষয়ে আমি কয়েকবার মৌখিক ভাবে বিদ্যুৎ অফিসে অভিযোগ করে আসছি। গত আগস্ট মাসে জুলাইয়ে বিদ্যুৎ বিল নিয়ে অভিযোগ করেছিলাম তখন তারা আশ্বস্ত করেছিলেন আগস্ট মাসে বিলে তা ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু এ মাসেও ঠিক হয়নি।
ভৌতিক বিদ্যুত বিলের প্রসঙ্গে ক্ষোভ প্রকাশ করে বিউবো-২ এর শহরতলীর মুরাদপুর বাইপাস এলাকার গিয়াস উদ্দিন নামে এক গ্রাহক জানান গত তিন মাস ধরে তার বাসায় হঠাৎ করে বড়ো অঙ্কের বিদ্যুত বিল আসা শুরু করে। অথচ তিনি মাত্র একটি ফ্যান আর দুটি লাইট ব্যবহার করেন। তিনি নিয়মিত প্রতি মাসে বিল পরিশোধ করে আসছেন তাই তার কোনো বকেয়াও নেই। তিনি আরো বলেন বিদ্যুত বিলের কাগজ যারা দিতে আসে তারা তাদের মিটারই দেখে না। মিটার না দেখেই অনুমানের উপর ভিত্তি করে তারা এই বিল দিয়ে যায়। তাদের বলেও কোনো লাভ হয়না, তারা বলে মিটার দেখা আছে। এতে করে তার মতো আরো অনেক গ্রাহককে বাড়তি বিলের কারণে বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। তিনি জানান, তিনমাস আগে হঠাৎ করে তার কাছে ২২ শত টাকার বিলের কাগজ ধরিয়ে দেয়া হয়। পরের মাসে আবার সাড়ে ৩ হাজার বিল আসবে বলে জানান বিলের কাগজ বিতরণকারী। বাড়তি বিল নিয়ে এসময় তিনি তার সাথে কথা বললে বিল বিতরণকারী জানান, তার পুরোনো বিল জমা রয়ে গেছে, তাই ওগুলো দেয়া হচ্ছে। গিয়াস উদ্দিন প্রশ্ন তোলেন প্রতি মাসে বিদ্যুত বিল বিতরণকারীদের বিতরণ করা কাগজ দেখে তিনি যেখানে নিয়মিত বিল পরিশোধ করে আসছেন সেখানে তার বকেয়া বিল কিভাবে থাকে। এটি সুস্পষ্ট প্রতারণা। তার মতো আশপাশের প্রায় সব গ্রাহকের এই একই অভিযোগ।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের এক কর্মকর্তা জানান, বিদ্যুতের মিটারের ছবি তুলে বিদ্যুৎ বিল তৈরী করার জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয় প্রাইভেট কোম্পানী মুনসী ইঞ্জিনিয়ারিং এসোসিয়েশনকে। কিন্তু বিগত কয়েক মাস যাবত তারা বিদ্যুতের মিটারের সাথে কোন সামঞ্জস্য না রেখে বিদ্যুৎ বিল প্রদান করে আসছে। যার কারণে অনেকের মিটারে পূর্বের বিল জমা থেকে যায়। তিনি আরো জানান, অনেক গ্রাহক বিদ্যুৎ বিল কমিয়ে দেওয়ার জন্য লাইনম্যানকে অতিরিক্ত টাকা দিয়ে থাকেন। যার কারণে তারা রিডিং না দেখে লাইনম্যান কম ইউনিটের বিল তৈরী করে দেন গ্রাকদের। যার কারণে মিটারে বিল জমা হয়ে আছে অনেক গ্রাহকের।
এ ব্যাপারে বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী পারভেজ আহমদের সাথে যোগাযোগ করা হলেও তিনি জানান, মুনসী ইঞ্জিনিয়ারিং এসোসিয়েশনকে বিদ্যুতের ¯œ্যাপিং ও বিলিংয়ের কাজ দেওয়া হয়েছিলো। তারা ঠিক মত রিডিং দেখে বিল তৈরী না করার কারণে গ্রাহকদের মিটারে পূর্বের অনেক ইউনিট জমে আছে। যার কারণে এক সাথে সব বিল আসার কারণে গ্রাহকদের নিকট তা ভৈৗতিক বলে মনে হচ্ছে। তিনি আরো জানান, আমি এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষকে অবহিত করেছি। গস্খাহকরা বলছেন যেহেতু তাদের পক্ষে একসাথে এত টাকা পরিশোধ করা সম্ভব হবে না তাই তা আমরা কতৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে কিস্তিতে পরিশোধের ব্যবস্থা করেন দিবো। (1753 বার পড়া হয়েছে)

তাহিরপুরে মেয়ের আত্মহত্যা, বাবা ও সৎ মা গ্রেফতার

atttohottaতাহিরপুর সংবাদদাতাঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় কলেজ ছাত্রী সাউদি আক্তার সারমিন সুমির (২১) আত্মহত্যার ঘটনায় বাবা সুরুজ সর্দার ও সৎ মা ইয়াছমিন আক্তার কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত বুধবার দুপুরে নিহত ছাত্রীর মামা আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে তাহিরপুর থানায় আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ করে মামলা দায়ের করে। মামলা নং-২০। মামলা দায়েরের পর রাতে নিহত কলেজ ছাত্রীর বাবা ও সৎ মাকে গ্রেফতার করার পর আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে দশটায় সুনামগঞ্জ জেল হাজতে প্রেরন করছে তাহিরপুর থানা পুলিশ। এলাকাবাসী ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়,গত মঙ্গলবার দুপুর ২টা ৩০মিনিটে বাড়ির লোকজন দুপুরের খাবার খাওয়ার সময় সুমি নিজ বাড়ির রান্না ঘরে উড়না পেছিয়ে আতœহত্যা করে। পরে ঝুলন্ত অবস্থায় পরিবারের লোকজন দেখতে পায়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাতপাতালে প্রেরন করা হয়। স্থানীয় এলাকাবাসী আরো জানায়,পিতা সুরুজ মিয়া মদ খেলে প্রায়ই মেয়ে সুমিকে নানান কারনে মারধর করত ও সাথে সৎ মাও শারীরিক নির্যাতন করত। ঘটনার দিনও একেই পরিস্থিতির শিকার হয়ে সুমি আতœহত্যার পথ বেঁেচ নেয়। তাহিরপুর থানার ওসি নন্দন কান্তি ধর বাবা ও সৎ মা আটকের এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। (93 বার পড়া হয়েছে)

কামালবাজারে স্টুডিও ব্যবসায়ী হত্যাকান্ডে আদালতে মামলা

স্টাফ রিপোর্টার: দক্ষিণ সুরমা থানায় কামালবাজারের মা ডিজিটাল স্টুডিওর স্বত্বাধিকারী শামীম (৩৯) কে হত্যা করে সিলেট রেলস্টেশনের প্ল্যাটফর্মের পাশে লাশ রাখার ঘটনায় আদালতে অজ্ঞাত ৫/৬ জনকে আসামী করে অভিযোগ দায়ের করা হয়। নিহত শামীমের ভাই ফয়েজ আহমদ গতকাল বৃহস্পতিবার সিলেটের অতিরিক্ত চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ বিস্তারিত… (109 বার পড়া হয়েছে)

গোলাপগঞ্জে ১০ দিন ধরে রহস্যজনক কারণে নির্মাণ শ্রমিক নিখোঁজ, স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ গোলাপগঞ্জের পৌর এলাকায় ১০ দিন ধরে এক নির্মাণ শ্রমিক রহস্য জনক কারণে নিখোঁজ রয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। নির্মাণ শ্রমিকের স্ত্রী নিজে এব্যাপারে গোলাপগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরী করলেও এ নিখোঁজের রহস্যের তীর অনেকটা তার দিকে ছোঁড়া হচ্ছে। পুলিশ এব্যাপারে অনেককেই জিজ্ঞাসাবাদ করলেও কোন তথ্য পায়নি। বিস্তারিত… (201 বার পড়া হয়েছে)

টাঙ্গুয়ার হাওরে এমসি কলেজ ছাত্রের মর্মান্তিক মৃত্যুতে শোকের ছায়া, দাফন সম্পন্ন

sunamgonj nihoto hasan pic(1)-29,05,17তাহিরপুর সংবাদদাতাঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের টাংগুয়ার হাওরে পানিতে ডুবে নিহত এমসি কলেজ মেধাবী ছাত্র আশরাফুল ইসলাম হাসানের (২৩) লাশ দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার ১১টার সময় ধর্মপাশা উপজেলার বাদশাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ মাঠে জানাযার নামাজ অনুষ্টিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন,ধর্মপাশা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মোতালেব খাঁ,তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কারুজ্জামান কামরুল,সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আনিসুল হক,ধর্মপাশা বিস্তারিত… (141 বার পড়া হয়েছে)

কুলাউড়ায় নিহত ১, বালাগঞ্জে লাশ উদ্ধার

lash uddarকুলাউড়া প্রতিনিধি ঃ কুলাউড়া উপজেলার ভাটেরা-বরমচাল সড়কে বৃহস্পতিবার সিএনজি গাড়ী দুর্ঘটনায় ১জন বৃদ্ধা নিহত ও ৪জন গুরুতর আহত হয়েছেন। জানা যায় বরমচালগামী যাত্রীবাহী এক সিএনজি ভাটেরা থেকে যাত্রী নিয়ে যাওয়ার পথে পথিমধ্যে বরমচাল-সিঙ্গুর রেল ক্রসিং এর পাশে অপরদিক থেকে আসা একটি পিকআপ গাড়ীকে সাইড দিতে গিয়ে ধাক্কা বিস্তারিত… (101 বার পড়া হয়েছে)