28 Jul 2017 : সিলেট, বাংলাদেশ :     |Bangla Font Error | Login |

নতুন সূর্যোদয়ের অপেক্ষা… দুই প্রতিবেশির সেমিফাইনাল আজ

bangladesh-cricket-team-players

আহবাব মোস্তফা খান: এই কদিন আগেও কত শত প্রশ্ন শুনতে হতো বাংলাদেশকে। টেস্ট স্ট্যাটাসের যোগ্য নয়। বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার মতো দল নয়। আরো কত কি…! কয়েক বছর ধরে অভাবনীয় পারফরমেন্সের পরও বিরেন্দ শেবাগ আর রমিজ রাজাদের এরকম তুচ্ছ তাচ্ছিল্য নিরবেই হজম করছে বাংলাদেশ। তবে ক্ষত বিক্ষত হয়নি। এসবে পাত্তাও দেয়নি। চ্যাম্পিয়নস ট্রফি শুরুর পরও তাদের অবহেলার তীরে বিদ্ধ হয়েছে বাংলাদেশ। তাদের ছুঁড়া তীর যেন তাদের উপরই এবার ‘বাউন্স’ করেছে। বাংলাদেশ আজ খেলছে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনাল। যা এখন স্বপ্ন নয়। রুপকথার কোন গল্পও নয়। সফলতার সিঁড়ি বেয়ে বাংলাদেশ আজ বিশ্বমঞ্চে। সম্ভাবনার নব দিগন্তে…।
অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড ম্যাচের দিন রিকি পন্টিংকে কমেন্টেটরস বক্স থেকে বলতে শুনা গেলো চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে তো চ্যাম্পিয়নরাই খেলে। তার মানে যারা খেলছে তারা সবাই চ্যাম্পিয়ন? হারলেও? আসলে তা নয়। অস্ট্রেলিয়ার বিদায়ের পর হয়তো এমন কথা বলে তিনি সান্তনা খুজার চেষ্টা করেছেন। লিখেছেন ভারতের এক বিখ্যাত সাংবাদিক। হ্যা এমন সান্তনা তো এখন তাদেরকেই খুঁজতে হবে । যেখানে একসময় আইসিসির কোন মেগা ইভেন্টের ফাইনাল কিংবা সেমিফাইনালে বাংলাদেশ থাকতো কেবলই দর্শক। সময়ের ¯্রােতে আজ এসব ‘জমিদাররাই’ দর্শক। সময় এখন বাংলাদেশের । সাকিব, মাশরাফিদের। শিরোপা থেকে তারা এখন মাত্র দুই সিঁিড় দুরে। যেন চাইলেই তারা ছুঁতে পারে স্বপ্নের শিরোপা!
ভারতীয় ক্রিকেটের কিংবদন্তি সৌরভ গাঙ্গুলি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি শুরুর আগে চার সেমিফাইনালিস্ট নির্ধারন করেই রেখেছিলেন। ভারত, অস্ট্রেলিয়া,ইংল্যান্ড আর সাউথ আফ্রিকা খেলবে সেমিফাইনাল। তার কথার যথার্থতা প্রমান করতে অনেক কমেন্টেটরদেরই সাফাই গাইতে শুনা গেলো টিভি পর্দায়। তবে কি তাদের বাংলাদেশের সাম্প্রতিক পারফরমেন্স নজরে আসেনি? সৌরভ কি ভুলে গেলেন বাংলাদেশের সাথে ২০১৫ সালের সিরিজ হারের কথা। ২০১২ সালের এশিয়া কাপের সেই দিন? বিশ্বকাপে বাংলাদেশের অভাবনীয় পারফরমেন্স? নিউজিল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশসহ আরো যত কীর্তি। এতো সব প্রশ্ন ভার্চুয়াল জগতে ঝড় তুলেছে। অনেকে লিখেছেন,সৌরভের ভারতকে হারিয়েই আজ সে জবাব দেবে বাংলাদেশ। যে বাংলাদেশে ক্রিকেট এখন মানুষের প্রায় অর্ধেক জীবনজুড়ে!
তার বাস্তবতারও প্রমান পাওয়া যায় হাটে,ঘাটে,মাঠে। বাংলাদেশ-ভারত সেমিফাইনাল নিয়ে আলোচনা এখন চায়ের স্টল থেকে শুরু করে ফাইভ স্টার হোটেল পর্যন্ত। কাল নগরীর শিবগঞ্জের একটি চায়ের স্টলে দুই রিকশা চালকের আলোচনার বিষয় দেখা গেলো সেমিফাইনাল নিয়ে। ক্রিকেটীয় সেন্স পুরোপুরী না থাকলেও কথাবার্তায় বুঝা গেলো বাংলাদেশের সব প্লেয়ারের নাম তাদের মুখস্ত। একজন বললেন সাকিবকে ওপেনিংয়ে নামালে রান ভারতের নাগালের বাইরে চলে যাবে। অপরজন বললেন ‘আরে সাকিব এতো আগে খেললে পরে ধরবে কে”? তাদের আলোচনার সাথে যোগ দিতে দেখা গেলো স্টল মালিককেও। যেন প্রতিজনই একেকজন ক্রিকেবোদ্ধা! সত্যিই! যে দেশের সর্বত্র ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা, সে দেশের অগ্রগতি ঠেকাবেন কি করে সেবাগ, রমিজ রাজারা? এমনটাই বলছেন উপস্থিত এক তরুন ক্রিকেটার।
তবে আজকের সেমিফাইনাল ঘিরে ভারতীয় দলপতির মুখে কাল নতুন সুর। ক্রিকইনফোর ওয়েবসাইটে দেখা গেলো বাংলাদেশকে নিয়ে তার সমিহ জাগানো কথা। তিনি বলেছেন বাংলাদেশ নাকি ভয়ংকর দল। দিনে দিনে তারা আরো ভয়ংকর হয়ে উঠছে। আজ বাংলাদেশও ফেবারিট। সেবাগদের উপলব্ধি না হলেও তাদের দলপতির এ উপলব্ধিতেই বুঝা গেলো বাংলাদেশ এগিয়ে গেছে কতদুর। হয়তো তাদের পরিকল্পনাজুড়ে কেবলই সাকিব, মোস্তাফিজ ও মাহমুল্লারা।
প্রশ্ন এখন সামনে এসেছে বাংলাদেশ দল নিয়ে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একই আলোচনা কেমন হবে আজকের বাংলাদেশ দল। কোন পরিকল্পনা নিয়ে আজ মাঠে নামবেন মাশরাফিরা। সংবাদ ব্রিফিংয়ে মাশরাফির কাছ থেকে দলে বড় কোন পরিবর্তনের ইংগিত পাওয়া যায়নি। ক্রিকেটের বাইবেল ক্রিকইনফোতে মাশরাফির কথায় বুঝা গেছে অপরবর্তিতই থাকছে বাংলাদেশ দল। তবে টস ভাগ্যে জিতলে বাংলাদেশ ভারতকেই আমন্ত্রন জানাতে পারে ব্যাটিংয়ের। ভারতকে অল্প রানে আটকানোর কৌশল নিয়েই এগুবে বাংলাদেশ। কারন ভারত পরে ব্যাটিংয়ে সবসময়ই ভালো করে। চেজিংয়ে তারা বিশ্বের অপ্রতিদ্বন্ধি। এমনটাই জানা গেলো বিসিবি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কাছ থেকে।
এদিকে বার্মিংহামের এক সাংবাদিকের কাছ থেকে জানা গেলো, বাংলাদেশের আজকের সেমিফাইনালকে ঘিরে যেন স্বপ্নের পসরা সাজিয়েছেন অনেকে। বৃটেনের বিভিন্ন এলাকা থেকে বার্মিংহামে জড়ো হয়েছেন শত শত বাংলাদেশী । সেখানে লাল সবুজ জার্সি ক্রয়ের হিড়িক পড়েছে। রাস্তায় রাস্তায় তাদের উপস্থিতি নজর কাড়ছে সবারই। ক্রিকেটের সাথে পরিচিত নয় বৃটেনের প্রায় ৭০ ভাগ মানুষ। রাগবি, ফুটবলকে ঘিরেই তাদের যত স্বপ্ন। কিন্তু বাংলাদেশীদের এমন উম্মাদনা দেখে তাদের আগ্রহও বেড়েছে আজকের ম্যাচ ঘিরে। আজ লাল সবুজের একটি জয়ই পূর্নতা এনে দিতে পারে তাদের সবার আলোচনা। যে জয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটে উদিত হবে নতুন সুর্যোদয়……।

(88 বার পড়া হয়েছে)

(Visited 1 times, 1 visits today)