24 Oct 2017 : সিলেট, বাংলাদেশ :     |Bangla Font Error | Login |

খাদ্যে ভেজাল

মাঝে মধ্যে সংশ্লি¬ষ্ট কর্তৃপক্ষের হম্বিতম্বি, শাস্তির ভীতি প্রদর্শন ও অভিযান সত্ত্বেও দেশে খাদ্যদ্রব্যে ভেজাল মিশ্রণ ও ভেজাল খাদ্যদ্রব্য বিক্রয় অব্যাহত। খাদ্যদ্রব্যে ভেজাল মেশানো এবং ভেজাল খাদ্য বিক্রয় অতীতেও ছিলো। তবে তা খুবই কম পরিমাণে এবং স্বল্প সংখ্যক সামগ্রীতে। যেমন আগে ঘিতে, কলা, পামওয়েল, ও ডালডা, সোয়াবিন বা সরিষার তেলে পামওয়েল, লবনে মাটি কিংবা মরিচের গুঁড়ো বা ইটের গুঁড়ো মেশানোর কথা শোনা যেতো। এছাড়া কোন কোন ক্ষেত্রে পেট্রোল বা কেরোসিনে পানি মেশানো হতো।
কিন্তু বর্তমান সময়ে ভেজাল মিশ্রণ বিশেষভাবে খাদ্যদ্রব্য মেশানো ভেজালের অধিকাংশই রাসায়নিক পদার্থ। এসব রাসায়নিক পদার্থের মধ্যে রয়েছে ফরমালিন, ইথাইল, কার্বাইড, ইউরিয়া, কীটনাশক ও ডিডিটি। সাধারনতঃ মাছ, ফল-মূল ও শাকসবজিকে দীর্ঘদিন টাটকা রাখতে ব্যবহৃত হচ্ছে ফরমালিন। শুধু তাই নয় দুধ ও মিষ্টি সামগ্রীতেও ব্যবহৃত হচ্ছে এই বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ। কলা ও অন্যান্য ফলমূল পাকাতে এবং উজ্জ্বল বর্ণের করতে ব্যবহৃত হচ্ছে কারবাইড, ইউরিয়া, ডিজেল, সূতার রং এমনকি মবিল জাতীয় পদার্থ। শুটকীতে মেশানো হচ্ছে ডিডিটি নামক বিষাক্ত কীটনাশক পদার্থ।
বিশেষজ্ঞদের মতে, এসব পদার্থ ক্যান্সার, চর্মরোগ ও আলসারসহ বিভিন্ন ধরনের পেটের পীড়া সৃষ্টি করতে পারে। এগুলো মানবদেহে স্লো পয়েজনিংয়ের মতো মারাত্মক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করছে। যারা ভেজাল ও বিষাক্ত খাবার খাইয়ে গোটা জাতিকে ধ্বংস করতে উদ্যত, তাদের বিরুদ্ধে এ ধরনের কোন ত্বরিৎ ও আইনানুগ বিচার ও শাস্তির ব্যবস্থা নিতে দেখা যাচ্ছে না সংশি¬ষ্ট কর্র্তৃপক্ষকে।
হলফ করে বলা যায়, বাংলাদেশে ভেজালের যে দৌরাত্ম্য চলছে, পাশ্চাত্য কিংবা মধ্যপ্রাচ্যের কোন দেশে কেউ এর হাজার ভাগের একভাগ করলে, কোটি টাকা জরিমানাসহ যাবজ্জীবন কারাদ- ও তার ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান সীলগালা করে দেয়া হতো। কিন্তু হা হতোস্মি! বাংলাদেশে এটা অকল্পনীয়। অকল্পনীয় হয়তো এজন্য যে যারা ভেজালকরণ ও ভেজাল খাদ্য সামগ্রী বিক্রির সাথে জড়িত, তারাই শাসক শ্রেণীর অন্তর্ভূক্ত কিংবা শাসক শ্রেণীর ঘনিষ্টজন ও স্বজন। এভাবে খোদ রাষ্ট্রযন্ত্রেই ভেজাল বিদ্যমান।
যা-ই হোক, আমরা জাতিকে এভাবে ‘স্লো পয়েজনিং’ অর্থাৎ দীর্ঘ বিষক্রিয়া থেকে রক্ষা করতে ‘পিওর ফুড (অ্যামেন্ডমেন্ট) অ্যাক্ট ২০০৬’ এর যথাযথ প্রয়োগসহ ভেজাল বিরোধী কঠোর অভিযানের দাবী জানাচ্ছি। আশা করি, সরকার এ ব্যাপারে আশু কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। (478 বার পড়া হয়েছে)

(Visited 1 times, 1 visits today)