20 Nov 2017 : সিলেট, বাংলাদেশ :     |Bangla Font Error | Login |

প্রকৃতিতে শীতের আগমনি বার্তা শিশিরে ভেজা হাওরাঞ্চল

sishir
জাহাঙ্গীর আলম ভুঁইয়া, তাহিরপুর থেকেঃ উত্তরের হিমেল হাওয়া ঘা শিরশির করা স্পর্শ দিয়ে সুনামগঞ্জের হাওরাঞ্চলে জানান দিচ্ছে শীত আসছে। ঋতু চক্রের পালায় এসেছে হেমন্ত। শীত আসতে এখনো বাকি তবে শীতের প্রভার পড়েছে রূপ বৈচিত্রে ভরপুর বাংলাদেশে হাওরাঞ্চলে। তাহিরপুর উপজেলা সীমান্ত এলাকা হওয়ার কারণে শীতের প্রভার পড়ছে একটু একটু করে। রাত যতই বাড়ছে কুয়াশা একটু একটু করে তার প্রভার বিস্তার করছে। ভোরে কুয়াশার ভেজা ধানের শীষ, রাস্তা ঘাট, সবুজ প্রান্তর। ভোরে কুয়াশা ভেজা ধানে চারার উপর এক একবিন্দু শিশির জল ভোরের সোনালী আলোতে হীরার উজ্জ্বল রূপ ধারন করেছে। বাংলার রূপে মুগ্ধ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর,জীবনান্দ দাস,জসীম উদ্দিন তাদের কবিতায় লেখার মাধ্যমে প্রকাশ করেছেন বাংলার রূপ হেমন্তের। শুয়ে আছে ভোরের রোদ ধানের উপরে মাথা রেখে,অলসের মত কার্তিকের মাঠের ক্ষেতে। মাঠে ঘাসের গন্ধ বুকে, চোখে তার সোনালী স্বপ্ন শিশিরের আহবান। তার আস্বাদ পেয়ে পেঁকে উঠে ধান। এই ধান ফিরিয়ে আনবে অভাবী কৃষকের ঘরে সুখ-সচ্ছন্দ,সচ্ছলতা অফুরান। শীত আসতে এখনো বাকি তারপরও রাত থেকে ভোর হালকা কুয়াশার শীতল হাওয়া বয়ে যাচ্ছে সুনামঞ্জের হাওরাঞ্চলে। হাওরের বুকে যে তরুপল্লব নিবিড় সবুজের সমারুহ তৈরী হয়েছিল। শোষণ যন্ত্রের মত রূপ, রং, সজিবতা, হাওর, বাওর, ডোবার পানি সব কিছুই শুষে নিয়ে তাদের এখন মলিন-বিমর্ষ রূপ ধারন করছে আস্তে আস্তে বৈচিত্র্য ময় এই কার্তিক মাস। তৃষণায় শুকিয়ে খটখটে ধুলোময় পায়ের নিচে মাটি। সবুজ পত্র-পল্লব হবে জং ধরা টিনের মত। স্বচ্ছ নীল আকাশ কুয়াশায় চাদরে আবছা হয়ে আসছে ছানি পড়া চোখের দৃষ্টির মত। ম্লান হয়ে আসছে ঝলমল রোদ। এই কার্তিক সব কিছুকেই বিভিন্নতা দান করতে যেন পন করে এসেছে এই বাংলায়। অভাবের কার্তিক এক অশনি সংকেতের মতো। বাংলার মঙ্গা কবলিত জনপদে তার আগমনে দিন মজুরদের মনে আতংকের শীতল ¯্রােত বয়ে যায়। দিন ছোট হয়ে আসছে। দেখতে দেখতেই ডিমের কুসুমের মত সোনালী থেকে সিঁদুরের মতো লাল সূর্য দিগন্তে অকাতরে লাল,কমলা রঙের আবির মেখে টুপ করে লাপাত্তা হচ্ছে। অন্য রখম ভাল লাগা প্রকৃতির রূপ বৈচিত্র বিরাজ করছে সারা বাংলাদেশের বুকে। (860 বার পড়া হয়েছে)

(Visited 1 times, 1 visits today)